//স্বরলোপ কাকে বলে? স্বরলোপ বা সম্পকর্ষের উদাহরণ দাও?
স্বরলোপ কাকে বলে? স্বরলোপ বা সম্পকর্ষের উদাহরণ দাও? Save

স্বরলোপ কাকে বলে? স্বরলোপ বা সম্পকর্ষের উদাহরণ দাও?

শব্দ দ্রুত উচ্চারণের জন্য শব্দের প্রথমে, মধ্য ও শেষে কোন স্বরধ্বনি লোপ পেলে তাকে সম্প্রকর্ষ বা স্বরলোপ বলে।

স্বরলোপ বা সম্পকর্ষের উদাহরণ হলো: বসতি(ব+অ+স+অ+ত+ই) > বস্তি(ব+অ+স+ত+ই), জানালা > জান্লা ইত্যাদি।

#সম্প্রকর্ষের আরেক নাম স্বরলোপ।

স্বরলোপ বা সম্পকর্ষ ৩ প্রকার:

  1. আদিস্বরলোপ
  2. মধ্যস্বর লোপ
  3. অন্ত্যস্বর লোপ

১. আদিস্বরলোপ: দ্রুত উচ্চারণের সুবিধার জন্য শব্দের শুরুতে স্বরধ্বনি লোপ হলে তাকে আদিস্বরলোপ বলে। যেমন: অতসী > তসী, অলাবু > লাবু >লাউ, আছিল > ছিল, উদ্ধার >উধার > ধার, অভ্যন্তর > ভিতর ইত্যাদি।

২. মধ্যস্বর লোপ: শব্দের মাঝখানে বা মধ্যবর্তী কোনো স্বরধ্বনি লোপ হলে তাকে মধ্যস্বর লোপ বলে। যেমন: কাঁদনা ˃ কান্না. অগুরু ˃ অগ্রু, সুবর্ণ ˃ স্বর্ণ, গৃহিণী ˃ গিন্নী, কলিকাতা ˃ কলকাতা, গামোছা ˃ গামছা, ভগিনী ˃ ভগ্নী ইত্যাদি। 

৩. অন্ত্যস্বর লোপ: শব্দের শেষে বা অন্ত্যে কোনো স্বরধ্বনি লোপ পেলে তাকে অন্ত্যস্বর লোপ বলে। যেমন: আজি > আজ, আশা > আশ, চারি > চার, সন্ধ্যা ˃ সঞ্ঝ্যা ˃ সাঁঝ, রাত্রি ˃ রাত, কালি ˃ কাল, ফাঁসি ˃ ফাঁস, জলপানি ˃ জলপান ইত্যাদি।