//রোবটের বিভিন্ন অংশের বা উপাদানের বর্ণনা
রোবটের বিভিন্ন অংশের বা উপাদানের বর্ণনা Save

রোবটের বিভিন্ন অংশের বা উপাদানের বর্ণনা

রোবট এমন একটি মেশিন যা স্বয়ংক্রিয়ভাবে কাজ করে থাকে এবং পরিবেশের পরিকর্তনের সাথে মানিয়ে নিতে পারে তবে এটি মানব তৈরি নির্দশ এর বা পোগ্রামের বাইরে কিছু করতে পারে না। রোবটের মেমরিতে যা ক্রিয়া বা কর্ম দেওয়া থাকে এর বাইরে রোবট কিছু করতে পারে না।

রোবট সম্পর্কিত আমাদের প্রথম আর্টিকেলটি পড়ুন রোবটের ইতিহাস এবং রোবট সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন। 

রোবটের গুরুত্বপূর্ন ৫টি উপাদান নিম্নে দেওয়া হলো:

১. পাওয়ার সিস্টেম:

একটি রোবট কাজ করার জন্য বিদ্যুৎ শক্তি প্রয়োজন। লেড এসিড ব্যাটারী দিয়ে রোবটের পাওয়ার দেওয়া হয়। এই ব্যাটারী আবার চার্য করা যায় অর্থাৎ এর ব্যাটারী রিচার্জেবল। তাই রোবটকে কাজ করানোর জন্য বিদ্যুৎ শক্তি সরবাহ করা বা ব্যাটারী ব্যবহার করা প্রয়োজন।

২. অ্যাকচুয়েটর:

রোবট এর দেহের অভ্যন্তরে অ্যাকচুয়েটর নামে ছোট কতগুলো মোটর রয়েছে যেগুলো দ্বারা রোবটের হত-পা বা সম্পূর্ণ শারীরিক অঙ্গ-প্রতঙ্গ নাড়াচড়া করতে পারে। রোবটের অভ্যন্তরে যে মোটরসগুলো ব্যবহৃত হয় ডিসি মোটরস, স্টিপার মোটরস, সার্ভো মোটরস ইত্যাদি। 



৩. অনুভূতি:

সেন্সর বা অনুভুতি হলো রোবট এর একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। অনুভূতি দ্বারা রোবটকে তার পরিবেশ সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করে থাকে। এই তথ্যটি রোবটের আচরণকে গাইড করতে ব্যবহার করা যেতে পারে। ক্যামেরাগুলি একটি রোবটকে তার পরিবেশের চাক্ষুষ উপস্থাপনা তৈরি করার অনুমতি দেয়। এটি রোবটটিকে পরিবেশের এমন বৈশিষ্ট্যগুলি বিচার করতে সহায়তা করে যা কেবলমাত্র দৃষ্টি দ্বারা নির্ধারিত হতে পারে যেমন আকৃতি এবং রঙ এবং সেইসাথে অবজেক্টের আকার এবং দূরত্বের মতো অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ গুণাবলী নির্ধারণে সহায়তা করে।

রোবট এর হাত বা পা যেকোনো জায়গায় স্পর্শ করলে সেই জায়গা সম্পর্কে  রোবট যাবতীয় তথ্য দেওয়ার সামর্থ রাখে। সুতরাং এই সেন্সর সিস্টেমগুলি বাস্তব জগৎ থেকে ডিজিটাল বিশ্বে একটি প্রতিক্রিয়া সরবরাহ করে, যা প্রক্রিয়াজাত হয় এবং রোবট সেই অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেয়।

৪. মস্তিষ্ক বা প্রসেসর:

রোবটকে নিয়ন্ত্রন করার জন্য মস্তিষ্ক বা প্রসেরের ব্যবহার করা হয়। এটি রোবটের প্রধান নিয়ন্ত্রক সিস্টেম। রোবট এর অভ্যন্তরে উপস্থিত প্রতিটি ব্যবস্থা এবং কার্যকারিতা একটি নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা হিসাবে কাজ করে। আপনি যে প্রোগ্রাম রোবট এর মস্তিষ্কে দিবেন রোবট ঠিক ঐভাবেই কাজ করবে।

৫. ম্যানিপিউলেশন:

রোবট এর চারপাশের বস্তুগুলোর অবস্থান পরিবর্তন করা হলো ম্যানিপিউলেশন। অর্থৎ রোবটের হাত-পা দিয়ে এই যাবতীয় পরির্তন করে থাকে। এটি হাতের আঙ্গুল দিয়ে কোনো বস্তুকে ধরতে পারবে এবং পা ‍দিয়ে ডানে/বামে এবং সামনে-পিছনে যেতে পারবে।