//জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম এর উক্তি সমূহ
জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম এর উক্তি সমূহ Save

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম এর উক্তি সমূহ

কাজী নজরুল ইসলাম বাংলাদেশের জাতীয় কবি। তিনি ১৮৯৯ খ্রিস্টাব্দের ২৫ এ মে (১১ই জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬) ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার আসানসোল মহকুমার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহন করেন। কাজী নজরুল ইসলামের পিতার নাম কাজী ফকির আহমেদ, মাতার নাম জাহেলা খাতুন। তিনি ছিলেন বাঙালি কবি, সাহিত্যিক, ঔপন্যাসিক, নাট্যকার, সাংবাদিক, সম্মাদক, সৈনিক, রাজনীতিবিদ, দার্শনিক এবং সঙ্গীতজ্ঞ। বাংলা কাব্যে ও সাহিত্যে তার ভূমিকা অতুলনীয়।

কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত উক্তি ও বাণী সমূহঃ

“ হিন্দু না ওরা মুসলিম এই জিজ্ঞাসে কোন জন হে, কাণ্ডারি বল ডুবিছে মানুষ সন্তান মোর মা’র ”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

”বিদ্রোহী মানে কাউকে না মানা নয়। যা বুঝিনা তা মাথা উঁচু করে বুঝি না বলা।”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ফোটে যে ফুল আঁধার রাতে ঝরে ধুলায় ভোর বেলাতে আমায় তারা ডাকে সাথী আয়রে আয় সজল করুণ নয়ন তোলো দাও বিদায়।। ”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

অন্ধের মতো কিছু না বুঝিয়া, না শুনিয়া, ভেড়ার মতো পেছন ধরিয়া চলিও না । নিজের বুদ্ধি, নিজের কার্যশক্তিকে জাগাইয়া তোলে 

—- কাজী নজরুল ইসলাম

কোন কালে একা হয়নি ক’ জয়ী পুরুষের তরবারি,/প্রেরণা দিয়াছে, শক্তি দিয়াছে বিজয়-লক্ষ্মী নারী।

—- কাজী নজরুল ইসলাম

অসুন্দর পৃথিবীকে সুন্দর করতে; সর্বনির্যাতন থেকে মুক্ত করতেই মানুষের জন্ম।

—- কাজী নজরুল ইসলাম

মনের পশুরে কর জবাই।

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ নুড়ি হাজার বছর ঝরণায় ডুবে থেকেও রস পায় না ”

ব্যার্থ না হওয়ার সব চাইতে নিশ্চিন্ত পথ হলো সাফল্য অর্জনে দৃঢ় সঙ্কল্প হওয়া

——-জাতীয় কবি নজরুল

যার ভিত্তি পচে গেছে, তাকে একদম উপড়ে ফেলে নতুন করে ভিত্তি না গাঁথলে তার ওপর ইমারত যতবার খাঁড়া করা যাবে, ততবার তা পড়ে যাবে ।

——-জাতীয় কবি নজরুল

”তুমি সুন্দর তাই চেয়ে থাকি প্রিয়, সে কি মোর অপরাধ? চাঁদেরে হেরিয়া কাঁদে চকোরিণী বলে না তো কিছু চাঁদ”

——-জাতীয় কবি নজরুল

ভালোবাসা যে জীবনে অপমান করে সে জীবনে আর ভালোবাসা পায় না



——-জাতীয় কবি নজরুল

তিনিই আর্টিস্ট, যিনি আর্ট ফুটাইয়া তুলিতে পারেন । আর্টের অর্থ সত্য প্রকাশ এবং সত্য মানেই সুন্দর; সত্য চিরমঙ্গলময় ।

——–কাজী নজরুল ইসলাম

যে যত ভণ্ড ধড়িবাজ আজ সেই তত বলবান।

——-জাতীয় কবি নজরুল

”বসন্ত এলো এলো এলোরে পঞ্চম স্বরে কোকিল কুহুরে মুহু মুহু কুহু কুহু তানে মাধবী নিকুঞ্জে পুঞ্জে পুঞ্জে ভ্রমর গুঞ্জে গুঞ্জে গুনগুন গানে”

——-জাতীয় কবি নজরুল

”খেলিছ এ বিশ্ব লয়ে বিরাট শিশু আনমনে। প্রলয় সৃষ্টি তব পুতুল খেলা নিরজনে প্রভু নিরজনে।”

——-জাতীয় কবি নজরুল

বল বীর-বল উন্নত মম শির! শির নেহারী’ আমারি নতশির ওই শিখর হিমাদ্রীর

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“নারীর বিরহে নারীর মিলনে নর পেলো কবি প্রাণ
যত কথা তার হইল কবিতা শব্দ হইল গান।”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

”কোনকালে একা হয়নিকো জয়ী, পূরুষের তরবারী; প্রেরনা দিয়েছে, শক্তি দিয়াছে, বিজয়ালক্ষী নারী”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

”চাঁদ হেরিছে চাঁদমুখ তার সরসীর আরশিতে ছোটে তরঙ্গ বাসনা ভঙ্গ সে অঙ্গ পরশিতে।”

—- জাতীয় কবি নজরুল

”ভালবাসার কোন অর্থ বা পরিমাণ নেই”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

“ কপালে সুখ লেখা না থাকলে সে কপাল পাথরে ঠুকেও লাভ নেই। এতে কপাল যথেষ্টই ফোলে, কিন্তু ভাগ্য একটুও ফোলে না ”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

“ বসন্ত মুখর আজিদক্ষিণ সমীরণে মর্মর গুঞ্জনেবনে বনে বিহ্বল বাণী ওঠে বাজি ”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

“ কামনা আর প্রেম দুটি হচ্ছে সম্পুর্ণ আলাদা। কামনা একটা প্রবল সাময়িক উত্তেজনা মাত্র আর প্রেম হচ্ছে ধীর প্রশান্ত ও চিরন্তন।

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ আমরা সবাই পাপী;
আপন পাপের বাটখারা দিয়ে;
অন্যের পাপ মাপি !! ”

—- জাতীয় কবি নজরুল

“ আমি বন্ধনহারা কুমারীর বেনী, তন্বী নয়নে বহ্নি, আমি ষোড়শীর হৃদি-সরসিজ প্রেম উদ্দাম, আমি ধন্যি ”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ কোনকালে একা হয়নিকো জয়ী, পূরুষের তরবারী;
প্রেরনা দিয়েছে, শক্তি দিয়াছে, বিজয়ালক্ষী নারী ”

—- জাতীয় কবি নজরুল

“ আমার যাবার সময় হল দাও বিদায়
মোছ আঁখি দুয়ার খোল দাও বিদায়।। ”

—- জাতীয় কবি নজরুল

“ মসজিদেরই পাশে আমার কবর দিও ভাই
যেন গোরে থেকেও মোয়াজ্জিনের আজান শুনতে পাই। ”

—- জাতীয় কবি নজরুল

“ মিথ্যা শুনিনি ভাই
এই হৃদয়ের চেয়ে বড় কোনও মন্দির-কাবা নাই ”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ নামাজ পড়, রোজা রাখ, কলমা পড় ভাই,
তোর আখেরের কাজ করে নে সময় যে আর নাই ”



—- জাতীয় কবি নজরুল

“ কারার ঐ লৌহকপাট,
ভেঙ্গে ফেল কর রে লোপাট,
রক্ত-জমাট শিকল পূজার পাষাণ-বেদী। ”

—- জাতীয় কবি নজরুল

“ অঞ্জলি লহ মোর সংগীতে
প্রদীপ-শিখা সম কাঁপিছে প্রাণ মম
তোমারে সুন্দর, বন্দিতে সঙ্গীতে।। ”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ চাঁদ হেরিছে চাঁদমুখ তার সরসীর আরশিতে
ছোটে তরঙ্গ বাসনা ভঙ্গ সে অঙ্গ পরশিতে। ”

—- কাজী নজরুল ইসলাম

“ গিন্নির চেয়ে শালী ভালো ”

—- জাতীয় কবি নজরুল

“ প্রেম হল ধীর প্রশান্ত ও চিরন্তন ”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল

“ বিশ্ব যখন এগিয়ে চলেছে, আমরা তখনও বসে- বিবি তালাকের ফতোয়া খুঁজেছি, ফিকাহ ও হাদিস চষে ”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

“ আসে বসন্ত ফুল বনে সাজে বনভূমি সুন্দরী;
চরণে পায়েলা রুমুঝুমু মধুপ উঠিছে গুঞ্জরি ”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল

“ বসন্ত এলো এলো এলো রে
পঞ্চম স্বরে কোকিল কুহরে
মুহু মুহু কুহু কুহু তানে ”

—- বিদ্রোহ কবি নজরুল

“ তোমারে যে চাহিয়াছে ভুলে একদিন, সে জানে তোমারে ভোলা কি কঠিন ”

—- কবি নজরুল।

ভালোবাসা দিয়ে ভালোবাসা না পেলে তার জীবন দুঃখের ও জরতার ।

—–কবি নজরুল।

স্বপনে কি যে কয়েছি তাই গিয়াছে চলে জাগিয়া কেদে ডাকি দেবতায় প্রিয়তম প্রিয়তম প্রিয়তম।।

—–কবি নজরুল।

শুণ্যে মহা আকাশে তুমি মগ্ন লীলা বিলাসে ভাঙ্গিছো গড়িছো নীতি ক্ষণে ক্ষণে নির্জনে প্রভু নির্জনে খেলিছো

——–Kazi Nazrul Islam

সত্য যদি লক্ষ্য হয়, সুন্দর ও মঙ্গলের সৃষ্টি সাধনা ব্রত হয়, তবে তাহার লেখা সম্মান লাভ করিবেই করিবে॥

—–Kazi Nazrul Islam

জীবনে যাদের হররোজ রোজা ক্ষুধায় আসে না নিদ/ মুমূর্ষু সেই কৃষকের ঘরে এসেছে কি আজ ঈদ?



—–Kazi Nazrul Islam

অনেক সময় খুব বেশি বিনয় দেখাতে গিয়ে নিজের সত্যেকে অস্বীকার করে ফেলা হয় । তাতে মানুষকে ক্রমেই ছোট করে ফেলে, মাথা নিচু করে আনে ও রকম মেয়েলি বিনয়ের চেয়ে অহংকারের পৌরুষ অনেক ভালো ।

——-Kazi Nazrul Islam

যে জাত-ধর্ম ঠুনকো এত, আজ নয় কা’ল ভাঙবে সে ত,/ যাক না সে জাত জাহান্নামে, রইবে মানুষ, নাই পরোয়া।

——-Kazi Nazrul Islam

অন্যায় রণে যারা যত দড় তারা তত বড় জাতি।

——-Kazi Nazrul Islam

মাটিতে যাদের ঠেকে না চরণ,/মাটির মালিক তাঁহারাই হন।

——-Kazi Nazrul Islam

বাহিরের স্বাধীনতা গিয়াছে বলিয়া অন্তরের স্বাধীনতাকেও আমরা যেন বিসর্জন না দিই।

——-বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

কান্না হাসির খেলার মোহে অনেক আমার কাটল বেলা
কখন তুমি ডাক দেবে মা, কখন আমি ভাঙব খেলা?

——-বিদ্রোহ কবি নজরুল ইসলাম

অন্যায় রণে যারা যত দড় তারা তত বড় জাতি।

——-Kazi Nazrul Islam

“আমি বেদুইন, আমি চেঙ্গিস, আমি আপনারে ছাড়া করি না কাহারে কূর্ণিশ।”

——-Kazi Nazrul Islam