Loading

অনুনাসিক বা নাসিক্য বর্ণ কয়টি ও কি কি?

অনুনাসিক বা নাসিক্য বর্ণ কয়টি ও কি কি?

অনুনাসিক বা নাসিক্য বর্ণ ৭টি। যথা: ঙ, ঞ, ণ, ন, ম এবং ং ও ঁ। এই বর্ণ বা প্রতীকগুলো উচ্চারণের সময় নাসিকার সাহয্য প্রয়োজন হয়, তাই এগুলোকে আনুনাসিক বা নাসিক্য বর্ণ বলে।

পরাশ্রয়ী বর্ণ কয়টি ও কি কি?

পরাশ্রয়ী বর্ণ কয়টি ও কি কি?

বাংলা বর্ণমালায় পরাশ্রয়ী বর্ণ ৩টি। পরাশ্রয়ী বর্ণ তিনটি হলো: ং, ঃ, ঁ। পরাশ্রয়ী বর্ণযুক্ত শব্দের উদাহরণ হলো: রং, চাঁদ, দুঃখ। যে বর্ণ কখনো স্বাধীন বা স্বতন্ত্র বর্ণ হিসেবে ভাষায় ব্যবহৃত হয় না। এই ধ্বনিগুলো অন্য ধ্বনি…

পশ্চাৎ দন্তমূলীয় বর্ণ কোনগুলি?

পশ্চাৎ দন্তমূলীয় বর্ণ কোনগুলি?

পশ্চাৎ দন্তমূলীয় বর্ণ গুলি হলো: ট, ঠ, ড, ঢ, ণ, ষ, র, ড়, ঢ়। উচ্চারণস্থান অনুযায়ী এ বর্ণসমূহকে মূর্ধন্য বা পশ্চাৎ দন্তমূলীয় বর্ণ বলে। সুতরাং; ট বর্গের বর্ণগুলো পশ্চাৎ দন্তমূলীয়।

তালব্য বর্ণ কোনগুলো?

তালব্য বর্ণ কোনগুলো?

তালব্য বর্ণ গুলো হলো: চ, ছ, জ, ঝ, ঞ, শ, য, য়। উচ্চারণস্থান অনুযায়ী এ বর্ণসমূহকে তালব্য বর্ণ বলে। অর্থাৎ, যেসব ধ্বনির উচ্চারণস্থান তালু তাদেরকে তালব্য ধ্বনি বলে।

Loading

ক বর্গীয় বর্ণ কোনগুলি?

ক বর্গীয় বর্ণ কোনগুলি?

ক বর্গীয় বর্ণ হলো: ক, খ, গ, ঘ, ঙ। এগুলো ধ্বনি হিসেবে কন্ঠ্য ধ্বনি এবং বর্ণ হিসেবে ’ক’ বর্গীয় বর্ণ।  ক, খ, গ, ঘ, ঙ এ বর্ণগুলো উচ্চারণস্থান অনুযায়ী নাম হলো কণ্ঠ্য বা জিহবামূলীয় বর্ণ।

বাক্য সংকোচন বা বাক্য সংক্ষেপণ |৭৫০+ এক কথায় প্রকাশ

বাক্য সংকোচন বা বাক্য সংক্ষেপণ |৭৫০+ এক কথায়…

বাক্য সংকোচন হলো কোনো বাক্য বা বাক্যাংশকে একপদীকরণ বা একশব্দে প্রকাশ করা। বাক্য সংকোচন অর্থ বাক্যকে সংক্ষিপ্ত করা বা ছোট করা। বাক্যকে ছোট করা বা সংক্ষিপ্ত করার অর্থ এই নয় যে একটি দীর্ঘ বাক্যকে ছোট…